টাইম-ট্রাভেল


গত শতাব্দী হতে বর্তমান পর্যন্ত বিজ্ঞানে মুখ্য আলোচিত বিষয়-টাইম ট্রাভেল । অনেক পদার্থবিদ এটাকে অসম্ভব দাবি করলেও অনেকেই আবার টাইম ট্রাভেল সম্ভব বলে দাবি করেছেন । যার জন্য প্রয়োজন আমাদের চতুর্থ মাত্রায় চলাচল এবং উপর নিয়ন্ত্রণ । কিন্তু এখন পর্যন্ত কোন পদার্থবিদ প্রমাণ করতে পারেননি, মানুষ-জাতী চতুর্থ মাত্রা নিয়ন্ত্রণ কিংবা এই মাত্রায় চলাচল করতে পারবে । এমতাবস্থায় টাইম-ট্রাভেলের ভবিষ্যৎ সম্ভবনা কতটুকু তা প্রশ্ন বিদ্ধ ।
যেসব পদার্থবিদ টাইম-ট্রাভেল সম্ভব নয় উল্লেখ করেছেন, তারা মাঝে মাঝে একে অযৌক্তিকও বলে দাবি করেন । তবে এ ব্যাপারে সম্প্রতি অতিত মুখ্য আকর্ষণ স্টিফেন ডব্লিউ হকিং বলেন, “আমি আমার সম্মান রক্ষার্থে বিষয়টি এড়িয়ে যেতাম” । তবে তার কথায় এতটুকু ইঙ্গিত পাওয়া যায়, তিনি হয়তো বিশ্বাস করতেন-টাইম ট্রাভেল করে ভবিষ্যতে যাওয়া সম্ভব এবং মানুষ এক সময় তার করে দেখাতে সক্ষম হবে ।
তাহলে এখন প্রশ্ন, টাইম-ট্রাভেল কি আসলেই সম্ভব ?
এ ব্যাপারে মার্টিন রিং বাউয়ের বলেন, “টাইম-ট্রাভেল এবং এর সম্ভব্যতা ব্যাখ্যা করতে হলে আমাদেরকে আধুনিক পদার্থবিজ্ঞানের অপ্রতিদ্বন্দ্বী দুইটি থিওরি বিশ্লেষণ করতে হবে । তা হল- আইনস্টাইনের সাধারণ আপেক্ষিকতা এবং কোয়ান্টাম মেকানিকস “। এই থিওরি দুইটির উপর নির্ভর করে বর্তমানে কিছু পদার্থবিদ তাত্ত্বিকভাবে সম্ভব্য কিছু উপায়ে টাইম ট্রাভেলকে অনুমোদন করছেন ।
এমন সম্ভব্য পাঁচটি উপায়-
১। অধিক ভরের কৃষ্ণ গহ্বরের(Supermassive Black hole) নিকট দিয়ে গমন ।
২। ওয়ার্মহোলের মাধ্যমে ।
৩। আলোর সমান বেগে যাত্রা করে ।
৪। কসমিক স্ট্রিং থিওরি ।
৫। মহাকর্ষীয় সময় বিস্তরন ।
এই পোস্টের পরবর্তি পোস্ট গুলাতে আমি একটি একটি করে সব-গুলো উপায় সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করব । আশা করছি, এর মাধ্যমে আপনারা টাইম-ট্রাভেল সম্পর্কিত আপনাদের সবগুলো প্রশ্নের উত্তর পাবেন । আমার জানার স্বল্পতা এবং তথ্যের ঘাটতি থাকলেও জানাবেন ।
লেখক
জিওন আহমেদ
ইইই চুয়েট

Post a Comment

0 Comments