আলোর গতি হিগস বোসনে ভিন্ন হতে পারে কিনা ?

প্রশ্নঃ হিগস বোসন হচ্ছে এমন একটি তাত্ত্বিক বলক্ষেত্র যা সমস্ত বিশশে ছড়িয়ে আছে যাতে ভরহীন কোনো কণা প্রবেশ করলে তা ধীরে ধীরে ভর লাভ করে ফলে চলার গতি কমে যায় ..
এখন আমার প্রশ্ন হচ্ছে৷ যদি এটা সত্যি হয় তাহলে আইন্সটাইনের বিশেষ আপেক্ষিকতার ২য় সীকার্যের পরস্পর বিরোধী হয়ে যায় যেখানে বলা হয়েছে আলোর গতি সবক্ষেত্রেই এক থাকবে৷ আর যদি ফোটন ভরযুক্ত হতেই থাকে তাহলে এটির শেষ পরিনতিই বা কি হবে??
উত্তরঃ
ফোটন হোক আর যাই হোক প্রকৃতিতে যত বস্তু বা যা কিছুই আছে, সবার কণা এবং তরঙ উভয় ধর্মই বিদ্যমান৷ যার ভর যত বেশি তার কণা ধর্ম তত বেশি তরঙ ধর্ম তত কম৷
আবার যার ভর যত কম তার তরঙ ধর্ম তত বেশি কণা ধর্ম তত কম৷
সেই দৃষ্টিকোণ থেকে বলা যায়, আলোর ভর থাকলেও থাকতে পারে৷ (যদিও আলোর কণা এবং তরঙ উভয় ধর্মই বিদ্যমান)৷ তবে আমাদের জানা সকল অস্তিত্বের মধ্যে আলো ভর নগন্য৷ তাই জানা অস্তিত্বের মধ্যে এর কণা ধর্ম সব থেকে কম এবংং তরঙ ধর্ম সব থেকে বেশি৷ তাই এর বেগ সব থেকে বেশি এবং কণা ও তরঙ উভয় ধর্মই সাদৃশ্য থাকায় আলোর এমন আচরণ সাভাবিক৷ মাইকেলসন মার্লি পরীক্ষায় প্রমাণিত হয়েছিল, আলো এক স্থান থেকে অন্য স্থানে গমনের জন্য কোন মাধ্যমের প্রয়োজন হয় না৷ ইথারও না৷ তাই যেহেতু আলো মাধ্যম নিরপেক্ষ তাই এটির বেগ নিরপেক্ষ বা অনির্ভরশীল একটি মান৷
তবে মনে রাখবেন আইন্সটাইন এর এটি কোন সুত্র নয়৷ এটি তার স্বীকার্য মাত্র৷ আর স্বীকার্য অর্থই ধরে নেয়া বা স্বীকার করে নেয়া৷
প্রশ্নকারী
প্রান্তর বড়ুয়া
উচ্চ মাধ্যমিক, বিজ্ঞান
হাজেরা তজু ডিগ্রি কলেজ, চট্টগ্রাম
ব্যাসেট

Post a Comment

0 Comments