ভেক্টর রাশির যোগের নিয়ম

মানের সাথে দিক জড়িত থাকায় ভেক্টর রাশির যোগ সাধারণ বীজগাণিতিক নিয়মে করা সম্ভব হয় না দিক এ ক্ষেত্রে বিঘ্ন ঘটায় তাই এদের যোগের ক্ষেত্রে বিশেষ কিছু নিয়ম রয়েছে । ভেক্টর রাশির যোগ নিম্নক্ত পাঁচটি নিয়মে করা যায় – যথাঃ

  • সাধারণ সূত্র
  • ত্রিভুজ সূত্র
  • বহুভুজ সূত্র
  • সামান্তরিক সূত্র
  • উপাংশ সূত্র

সাধারণ সূত্রঃ সমজাতীয় দুটি ভেক্টরের প্রথমটির শীর্ষ বিন্দু এবং দ্বিতীয়টির আদি বিন্দু একই বিন্দুতে স্থাপন করলে প্রথম ভেক্টরের আদি বিন্দু ও দ্বিতীয় ভেক্টরের শীর্ষবিন্দুর মধ্যে সংযোগকারী সরলরেখার দিকে লব্ধি ভেক্টরের মান ও দিক নির্দেশ করে

সাধারণ সূত্র

ত্রিভুজ সূত্রঃ  দুটি ভেক্টর কোন ত্রিভুজের সন্নিহিত বাহু দ্বারা একই ক্রমে মানে ও দিকে সূচিত করা হলে ত্রিভুজের তৃতীয় বাহুটি বিপরীত ক্রমে ভেক্টর দ্বয়ের লব্ধির মান ও দিক নির্দেশ করে

ত্রিভুজ সূত্র

বহুভুজ সূত্রঃ একটি বহুভুজের সবগুলো বাহুকে একই ক্রমে কতগুলো ভেক্টর দ্বারা নির্দেশ করলে শেষোক্ত বাহুটি বিপরিতক্রমে এদের লব্ধির মান ও দিক নির্দেশ করবে ।  

বহুভূজ সূত্র

সামান্তরিক সূত্রঃ কোন সামান্তরিকের যেকোনো দুইতি সন্নিহিত বাহু যদি কোন কণার উপর একই সময়ে ক্রিয়ারত দুটি ভেক্টর রাশির মান ও দিক নির্দেশ করে, তবে ঐ বিন্দু হতে অঙ্কিত সামান্তরিকের কর্ণই এদের লব্ধির মান ও দিক নির্দেশ করবে

সামান্তরিক সূত্র

উপাংশ সূত্রঃ ভেক্টর রাশিকে দুই বা ততোধিক ভেক্টর রাশিতে বিভক্ত করা যায় এই বিভক্ত অংশগুলোকে মূল ভেক্টর রাশির অংশক বা উপাংশ বলে

উপাংশ সূত্র

প্রয়োগ ক্ষেত্র বা সমস্যা সাপেক্ষে সূত্রগুলো কোনটি কোথায় ব্যবহার করতে হবে, এমন কোন বাঁধা ধরা নিয়ম নেই । কারণ এদের একটি যেকোনটির মাধ্যমেই আমরা যোগ করতে পারি । 

জিওন আহমেদ

Post a Comment

0 Comments