ভুস্থির উপগ্রহ

মনে করুন, সুন্দর করে একটা কার সাজিয়ে নিয়ে আপনি বিয়ে করতে যাচ্ছেন । আপনার বাড়ি থেকে আপনার অপেক্ষারত প্রিয়ার বাড়ি পর্যন্ত রঙ বেরঙের ফুল আর আলো দিয়ে সাজিয়েছেন । আপনার জীবনের এই মূহুর্তটাকে আরও অবিস্মরণীয় করে তুলতে, আমি বিশাল একটা রঙিন বেলুনে আপনার বিয়ের কথা ছাপিয়ে দিলাম । এরপর বেলুনটিকে এমনভাবে প্রোগ্রাম করলাম, যাতে বেলুনটি সবসময় আপনার বিয়ের গাড়ির এক কিলোমিটার উপরে উড়তে থাকে । আপনার গাড়িটা ঠিক যে পাশে যত বেগে যাবে, বেলুনটি ঠিক সেই পাশ দিয়েই তত বেগে যাবে । এতে করে আপনি যখনই উপরে তাকাবেন, বেলুনটিকে উপরে দেখতে পারবেন ।

বেলুনটা এভাবে কেন আপনাকে ফলো করছে ? উত্তরটা সহজ । একই পথে আপনার বেগ এবং বেলুনের বেগ সমান । অর্থাৎ আপনার বাড়ি থেকে বের হয়ে পাত্রীর বাড়ি যাওয়ার মধ্যবর্তী সময় আপনার জন্য যত হবে, বেলুনের জন্যও তত হবে ।

আমরা জানি, কৃত্রিম উপগ্রহগুলো প্রতিনিয়ত আমাদের পৃথিবীকে কেন্দ্র করে ঘুরছে । আমরাও তো পৃথিবী পৃষ্ঠে বসে পৃথিবীর চারপাশে ঘুরছি । কখনও কোন উপগ্রহের জন্য যদি এমন হয়, পৃথিবীর চারপাশে আমাদের এই ঘুর্ণনকাল এবং সেই উপগ্রহটির ঘুর্ণনকাল সমান, তবে কি ঘটবে । নিশ্চয়ই বেলুনের মতই সেই উপগ্রহটাকে আমরা দেখতে পেলে সবসময় আমাদের মাথার উপর স্থির অবস্থায় দেখতাম । অর্থাৎ আমাদের কাছে মনে হত, উপগ্রহটি আমাদের মাথার উপর স্থির অবস্থায় আছে । এরুপ উপগ্রহগুলোকে আমরা বলে থাকি, ভূস্থির উপগ্রহ । যেহেতু উপগ্রহ একটি নির্দিষ্ট কক্ষপথে পরিভ্রমণ করে, আর ভূস্থির উপগ্রহের এই কক্ষপথকে বলা হয়- পার্কিং কক্ষপথ ।

আমরা যেমন পৃথিবীর চারদিকে একবার পরিভ্রমণ করতে সময় লাগে, ২৪ ঘন্টা । তেমনি আমাদের আমাদের জন্য একটি ভূস্থির উপগ্রহের পর্যায়কাল হবে ২৪ ঘণ্টা ।

জিওন আহমেদ

Post a Comment

0 Comments